অনলাইন আয়ের ব্লগ

লোগো ডিজাইন কেন এবং এর মার্কেটপ্লেস এ গুরুত্ব

গ্রাফিক ডিজাইন বর্তমান সময়ে একটি জনপ্রিয় পেশা। এ কাজটি একই সাথে আনন্দদায়ক এবং সৃজনশীল। যদি আপনার মাঝে ক্রিয়েটিভিটি থাকে আর স্বাধীনভাবে কাজ করতে চান তাহলে ফ্রিল্যান্সার হিসেবে গ্রাফিক ডিজাইনে নিজেকে গড়ে তুলতে পারেন। লোগো ডিজাইন এর কর্মক্ষেত্র আর তুমুল চাহিদা থাকার কারণে একজন প্রফেশনাল গ্রাফিক ডিজাইনারের গ্রহণযোগ্যতা খুবই বেশি। যদি আপনি গ্রাফিক ডিজাইনে আউটসোর্সিং বা প্রোডাক্ট বেইজড কাজ করতে চান আপনাকে আন্তর্জাতিক মানের গ্রফিক এর কাজ শিখতে হবে| নিজেকে আন্তর্জাতিক মানের ডিজাইনার হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলে পাড়ি দিতে হবে দীর্ঘ পথ, জানতে হবে নিত্য-নতুন কলা-কৌশল। 

অ্যাফিলিয়েট করার জন্য একটি প্রফেশনাল ওয়েবসাইট ডিজাইন করলে কি কি জানা প্রয়োজন?

# লোগো ডিজাইন কি

লোগো বলতে আমরা একটি কোম্পানির পরিচয় বা ব্র্যান্ডিং কে বুঝি । লোগোর মাধ্যমে একটি প্রতিষ্ঠানকে চেনা যায় খুব সহজেই। বিশ্বের নামকরা ব্র্যান্ড অ্যাপল, স্যামসাং, গুগল কিংবা ফেইসবুক এবং বাংলাদেশের ব্র্যান্ড আড়ং, গ্রামীণফোন,রবি,এয়ারটেল,টেলিটক, প্রাণ কিংবা প্রথম আলো শুধুমাত্র তাদের লোগো দেখেই চিনে যাওয়া যায়। কিন্তু মানসম্মত দৃষ্টিনন্দন লোগো কিন্তু একজন গ্রাফিক ডিজাইনার এর উপর নির্ভর করে। কালারিংও ব্র্যান্ডিং এর ক্ষেত্রে লোগো অনেক ভূমিকা রাখে। লোগো যেমন লোকাল বিজনেসে প্রয়োজন হয় তেমনি তা অনলাইনে টাকা আয়ের জন্য বহুল চাহিদা সম্পন্ন একটি বিষয়। 

# ক্যারিয়ার হিসেবে লোগো ডিজাইন

আপনি যদি নিজেকে একজন দক্ষ লোগো ডিজাইনার হিসেবে গড়ে তুলতে পারেন তাহলে আপনার চাহিদা হবে অনেক বেশি। আর বর্তমানে লোগো ডিজাইন শুধু চাকরির উপর নির্ভর করেনা। ফ্রিলান্সিং ও আউটসোর্সিং করেও প্রতি মাসে ভালো পরিমান টাকা আয় করা সম্ভব।
অনলাইন ফ্রিলান্সিং করে প্রতি মাসে লোগো ডিজাইন এর মাধ্যমে ভালো পরিমান টাকা ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে। শুধু যে অনলাইন এ তা নয়, অফলাইন এও এর চাহিদা অনেক। নিজের উপর কনফিডেন্স ও সৃজনশীলতা থাকলে দ্রুত নিজেকে লোগো ডিজাইন সেক্টরে পারদর্শী করা সম্ভব

# ফ্রিলান্স মার্কেটপ্লেস এ এর গুরুত্ব ঃ

ফ্রিলান্স মার্কেটপ্লেস সব ধরনের কাজের মধ্যে প্রায় ১৪% কাজই গ্রাফিক্স এর উপর নির্ভর করে। গ্রাফিক্স এ লোগো ডিজাইন ও মাল্টিমিডিয়া এর কাজ , গতবছর আয় বেড়ে বৃদ্ধির হার হয়েছিল ৪৪%। অতএব আমরা বলতেই পারি , ফ্রিলান্সার হতে চাওয়া তরুন্দের জন্য লোগো ডিজাইন অন্যতম শক্তি।

# লোগো ডিজাইন আয়ের ধারনাঃ

একটি লোগো ডিজাইন করে ৫০ থেকে শুরু করে ২০০০ ডলার পর্যন্ত হতে পারে। বড় প্রতিষ্ঠান গুলার ক্ষেত্রে এটি বেড়ে ৫-১০ হাজার ডলার মধ্যেও পেমেন্ট হয়ে থাকে। 

গ্রাফিক্স ডিজাইন এ Illustrator এর গুরুত্ব এবং workplace এর বিস্তারিত আলোচনা

# লোগো ডিজাইন এর সময় যেসব বিষয় মাথায় রাখতে হবে– 

১. লোগোর মধ্যে অনেক ডিজাইন দেয়ার প্রয়োজন নেই :

আপনি একটা লোগো তে যত কম উপাদান ব্যবহার করবেন আপনার লোগো দেখতে তত আকর্ষণীয় হবে, আপনি অনেক কিছু ব্যবহার করলে দর্শক বুঝতে পারবে না আপনি কি বুঝাতে চেয়েছেন।

২. সময়ের সাথে লোগো ডিজাইন এও পরিবর্তন আনতে হবে :

ফ্যাশান অথবা ট্রেন্ড যখন পুরানো হয়ে যাবে আপনার লোগো ও পুরানো হয়ে যাবে। আপনার দর্শক ও উৎসাহ হারিয়ে ফেলবে। যুগের সাথে মিল রেখে লোগো ডিজাইন করা অবশ্যই ভালো একটা বাপার। 

গ্রাফিক্স এ ফটো এডিটিং এর ভুমিকা

৩. কিছু দিন পর পর ডিজাইন পরিবর্তন করা উচিৎ: 

যুগের সাথে সাথে আপনার করা পুরানো লোগো যেন মিলে যায় সেরকম চিন্তা করে লোগো বানানো উচিৎ ও পরিবর্তন করা উচিৎ

৪. লোগো নকল করা যাবেনা : 

যার জন্য লোগো বানাচ্ছেন তার কাছ থেকে সব রকম তথ্য নিয়ে নিতে হবে, কি রকম বিজনেস, কি টার্গেট ইত্যাদি ইত্যাদি । যে বিষয়ে লোগো বানাচ্ছেন সেই লোগো সম্পর্কিত লোগো দেখেন, এরপর যেরকম ডিজাইন সেখানে নেই সেরকম ভাবে একটা ডিজাইন তৈরি করুন, তাহলে দেখবেন আপনার ডিজাইন অন্যদের ডিজাইন থেকে আলাদা করা যাবে, আপনার ডিজাইন এর একটা পরিচয় খুজে পাওয়া যাবে। 

৫. কোম্পানির বিষয় না, উদ্দেশ্য নিয়ে লোগোর বানাতে হবে: 

এখানে সব সময় কোম্পানির বিষয় এর উপর ফোকাস না করে কোম্পানির উদ্দেশ্য এর উপর ফোকাস করে লোগো বানানো যেতে পারে 

৬. কম ফন্ট ব্যবহার করতে হবে : 

লোগো বানাতে গিয়ে অনেক রকম ফন্ট ব্যবহার করি যেটা একদম এ ঠিক না। লোগো ডিজাইন এ বেশি হলে ২টা ফন্ট ব্যবহার করা যেতে পারে। Source

Exit mobile version